Breaking News

পুরোনো রাগ-অশান্তি ঝেড়ে ফে’লে নতুন বছরে শুরুতে শ্রাবন্তীকে কাছে চাইছেন রোশন!

তৃতীয় বিয়ে ভাঙার গুঞ্জনের মধ্যেই সবার চোখ এখন শ্রাবন্তীর উপরে। স’ম্পর্কে ফাটল ধরেছে অনেকদিন আগেই। রোশন ও শ্রাবন্তীর ইনস্টাগ্রাম তা ভক্তদের জানান দিয়েছিল।

ইনস্টাগ্রাম থেকে ছবি ডিলিট হওয়ার পর থেকেই জল্পনা ক্রমশ বাড়ছিল। সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করেই চলছিল কদর্য আ’ক্রমণ।

তবে কি নতুন বছরে ফের শ্রাবন্তীকে কাছে পেতে চাইছেন রোশন। সম্প্রতি রোশনের ইনস্টা-স্টোরি তেমনই ইঙ্গিত দিচ্ছে নেটিজেনদের। পুরোনো রাগ-অশান্তি ঝেড়ে ফে’লে মান-অ’ভিমান ভু’লে বছরের শেষে কি ফের জোড়া লাগাতে চাইছেন স’ম্পর্কে।

তৃতীয় বিয়ে ভাঙার গুঞ্জনের মধ্যেই সবার চোখ এখন শ্রাবন্তীর উপরে। একের পর এক ঝড় বয়ে চলেছে টলি অ’ভিনেত্রী শ্রাবন্তী জীবনে।

এর মধ্যেই রোশনের এই পোস্টে আশার আলো খুঁজছেন সাইবারবাসী। গতকাল রাতেই ৩ টি স্টোরি পোস্ট করেন শ্রাবন্তীর স্বা’মী রোশন। প্রথম দুটি ব্যঙ্গাত্মক হলেও শেষের পোস্টে চোখ আ’ট’কে গেছে নেটিজেনদের।

কী’ এমন বিশেষত্ব ছিল স্টোরিতে। আসলে ছবিটিতে দেখা গেছে, সকলে যখন নিজের স’ঙ্গীকে নিয়ে ভালবাসার ম’ত্ত, সেখানে ভিড়ের মাঝে দাঁড়িয়ে এক যুবক। এবং অ’বাক হয়ে সকলের দিকে তাকিয়ে রয়েছে ওই যুবক। ছবিটি পোস্ট করে রোশন ক্যাপশনে লিখেছেন , ‘মাই কন্ডিশন’ । নিজের একাকী’ত্বকেই সকলের সামনে তুলে ধরেছেন শ্রাবন্তীর স্বা’মী।

তবে কি এবার বরফ গলবে, এই নিয়ে জো’র জল্পনা শুরু হয়েছে। আবারও কি একস’ঙ্গে দেখা যাবে টলিপাড়ার এই কাপলকে। যদিও রোশনের এই পোস্টে কোনও রকম ইঙ্গিত মেলেনি শ্রাবন্তীর দিক থেকে। বর্তমানে শ্রাবন্তী স্পিকটি নট রয়েছেন।

শ্রাবন্তী-রোশন
এই টালমাটাল পরিস্থিতিতে নিজের জীবনের নতুন ইনিংস নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন শ্রাবন্তী। হাজারো গুঞ্জনের মধ্যে তিনি কোনও কিছুতেই কান দিচ্ছেন না। বরং নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন নিজের নিয়মে।

একদিকে সিনেমা’র শুটিং, ওয়েব সিরিজের কাজ সামলেও জিমের ব্যবসা খুললেন অ’ভিনেত্রী। ছবি দেখেই একাধিক মন্তব্য করতে শুরু করছেন নেটিজেনরা, যদি স্পিকটি নট টলিপাড়ার মিষ্টি নায়িকা শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়।

About tanvir

Check Also

ভাতে রয়েছে স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত জরুরি পুষ্টিগুণ

ভাত খেতে বা’ধা, এ নি’ষেধ যেন মানবার নয়! মেদ, ভুঁড়ি যতই বাড়ুক, এক বেলা ভাত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *