Breaking News

‘বেয়াদবি’ করায় জুনিয়রকে পেটালেন ছাত্রলীগের ২ সিনিয়র নেত্রী

‘বেয়াদবি’র অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হল ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফাল্গুনী দাস তন্বীকে মা’রধর করেছেন সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেনজির হোসেন নিশি ও শামসুন নাহার হল শাখার সাধারণ সম্পাদক জেসমিন শান্তা।

সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু টাওয়ারের সামনে এ ঘ’টনা ঘটে।

জানা গেছে, ফাল্গুনী তন্বী, জেসমিন শান্তা ও বেনজির হোসেন নিশি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের অনুসারী।

তন্বীর স’ঙ্গে আগে থেকেই রেষারেষি ছিল নিশির। ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসে ছাত্রলীগের প্রো’গ্রামের ব্যানারের একপাশে বেনজির নিশি দাঁড়ায় অন্যপাশে তন্বী দাঁড়ায়। এই নিয়ে তন্বীর ও’পর ক্ষি’প্ত হন নিশি। জুনিয়র হয়ে সে কেন ব্যানারের সামনে দাঁড়াবে এটা নিয়ে তাদের মধ্যে কথা-কা’টাকাটি হয়।

এই ঘ’টনার জেরে সোমবার রাত ১২টার দিকে নিশি ও শান্তা ফাল্গুনীকে ফোন দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদে যেতে বলে। পরে সেখানে গেলে তারা শাসাতে থাকেন। একপর্যায়ে তারা ফাল্গুনীকে মা’রতে উদ্যত হলে সেখান থেকে দৌড়ে বঙ্গবন্ধু টাওয়ারের সামনে এলে তাকে ধরে ফে’লে উপর্যুপরি মা’রতে থাকে।

ভু’ক্তভোগী তন্বী বলেন, আমি যেন না পালাতে পারি সে জন্য তাদের স’ঙ্গে থাকা দুটি ছেলে আমাকে ঘিরে রাখে। একপর্যায়ে আমি মাটিতে পড়ে গেলে শান্তা আমার পায়ে জো’রে চা’প দিয়ে ধরে রাখে। আর নিশি আমাকে এক পা দিয়ে চে’পে ধরে এলোপাতাড়ি লা’থি মা’রতে থাকে।

আমার গ’লায় পা দিয়ে চা’প দেওয়ায় আমার গ’লা দিয়ে র’ক্ত বেরিয়ে আসে। তারা আমার মুখও খামচে দেয়। রাস্তায় পড়ে গিয়ে আমার হাত-পা ও মাথায় আ’ঘাত লাগে। তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিম ও দায়িত্বরত পু’লিশ আমাকে উ’দ্ধার করতে আসলে তারা আমাকে ছেড়ে দেয়।

তিনি বলেন, পরবর্তীতে এক বড় ভাইয়ের সহযোগিতায় হাসপাতালে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা নিই। এরপর থেকে এখন পর্যন্ত আমি শ’ক্ত কোনো কিছু খেতে পারছি না। নিশি আমার মোবাইল কেড়ে নিয়ে ভে’ঙে ফে’লেছে।

জানতে চাইলে ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বেনজির হোসেন নিশি বলেন, মে’য়েটা বেয়াদবি করেছিল তাই আমরা শাসন করেছি। একটা ভু’ল বোঝাবুঝি হয়েছিল। পরে আমরা সমাধান করে নিয়েছি।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, আমরা জানতাম তাদের মধ্যে এমন উ’ত্তেজনা ছিল। কিন্তু তারা যে মা’রামারি করেছে তা জানি না। যদি এমন কিছু করে থাকে তাহলে তাদের বি’রুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

About tanvir

Check Also

বাংলাদেশের প্রথম তৃতীয় লি*ঙ্গের মাদরাসায় নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু

শিক্ষার্থীদের উচ্ছ্বাস ও আ’নন্দমুখর পরিবেশে বাংলাদেশের প্রথম তৃতীয় লি*ঙ্গের মাদারাসায় নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু হয়েছে। গতকাল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *