Breaking News

দেশের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা মতলববাজ: নানক

দেশের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা মতলববাজ, এরা বিভিন্ন সময় ষ’ড়যন্ত্রের অংশীদার হিসেবে মাঝে মাঝে কাছিমের মতো মাথা বের করে। এদের কোনো আবেদন-নিবেদন নেই।’

সোমবার (২১ ডিসেম্বর) বিকেলে এ বি’ষয়ে এক অনলাইন গণমাধ্যমের প্রতিবেদকের কাছে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে এসব কথা বলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক স্থানীয় স’রকার প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক।

নানক আরও বলেন, ‘সুশীল সমাজের সম্প’র্কে যদি স্বরূপ উদঘাটন করি তাহলে খুব নোং’রা স্বরূপ আছে! এ বি’ষয়গুলো নিয়ে বলতে চাই না।

এই সুশীলরা ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হ’ত্যা’র পরেও কিন্তু এই সুশীলদের কোনো ভূমিকা আমরা দেখিনি।’

বঙ্গবন্ধু হ’ত্যাকাণ্ডকে ইতিহাসের একটি ব’র্বরতম হ’ত্যাকাণ্ড উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘৩ নভেম্বর জে’ল হ’ত্যাকাণ্ড হয়েছে কিন্তু সুশীলদের কথা বলতে দেখিনি।

এমনিক এই সেদিন বিএনপি-জামায়াত জোটের আমলে গ্রে’নেড হা’মলা যখন হলো, জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হ’ত্যা করার উদ্দেশে, আওয়ামী লীগের জাতীয় নেতৃবৃন্দকে হ’ত্যার উদ্দেশে, তখনো কিন্তু এই সুশীলরা কথা বলেননি।’

এছাড়া তিনি বলেন, ‘আমি জানি না; নির্বাচন কমিশনের কাছে গ্রহণযোগ্য আছে কি না বা এটা চিন্তার মধ্যে নেবে কি না? আমাদের কাছে এই সুশীলদের বা

বাংলাদেশের মানুষের কাছে এই সুশীলদের কোনো গ্রহণযোগ্যতা যে নাই, তা বারবার প্রমাণ করেছে এক/এগারোর অঘটন।

এক/এগারের অঘটন করার পর এই সুশীলদের ভূমিকা দেশের মানুষ দেখেছে। কাজেই মানুষ এই তথাকথিত সুশীলদের স’ঙ্গে নাই। এটি আমাদের কোনো চিন্তার মধ্যে আনার কোনো কারণও নেই, সুযোগও নেই।’

এর আগে, গত ১৪ ডিসেম্বর বর্তমান নির্বাচন কমিশনের বি’রুদ্ধে রাষ্ট্রপতির কাছে ‘গু’রুতর অসদাচরণের’ অভিযোগ করেছেন দেশের ৪২ বিশিষ্ট নাগরিক। শুধু অসদাচরণ নয়,

অনিয়ম, দু’র্নীতি এবং নিয়োগ বাণিজ্যেরও অভিযোগও এনেছেন তারা। তার প্রতিক্রিয়ায় নানক এসব কথা বলেন।

রাষ্ট্রপতিকে চিঠি পাঠিয়ে এসব অনিয়ম ও দু’র্নীতি ত’দন্তে সুপ্রিম জু’ডিশিয়াল কাউন্সিল গঠনের অনুরোধ করেছেন।

পাশাপাশি অভিযোগের সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত তাদের দায়িত্ব পালনে বিরত থাকারও অনুরোধ করা হয়েছে। এ বি’ষয়ে সরাসরি কথা বলার জন্য রাষ্ট্রপতির স’ঙ্গে সাক্ষাতের সময় চেয়ে অনুরোধও জানিয়েছেন।

গত ১৪ ডিসেম্বর রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বে বর্তমান নির্বাচন কমিশনের সদস্যরা ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই বিভিন্নভাবে গু’রুতর অসদাচরণে লি’প্ত হয়েছেন।

কমিশনের সদস্যগণ একদিকে গু’রুতর আর্থিক দু’র্নীতি ও অনিয়মের স’ঙ্গে যুক্ত হয়েছেন, যা অভিশংসনযোগ্য অ’পরাধ।

একইভাবে তারা বিভিন্নভাবে আইন ও বিধিবিধানের ল’ঙ্ঘন করে গুরতর অসদাচরণ করে চলেছেন।

আমরা আর্থিক দু’র্নীতি ও অনিয়মসহ কমিশনের গু’রুতর অসদাচরণের অন্য কয়েকটি ক্ষেত্র আপনার সদয় অবগতির জন্য চিহ্নিত করছি।

About tanvir

Check Also

সাঈদ খোকনের বক্তব্যের জবাবে এবার যা বললেন মেয়র তাপস

সাবেক মেয়র সাঈদ খোকন তাকে জড়িয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন তার কোনো গুরুত্ব বহন করে না …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *