Breaking News

গ’র্ভপাত করতে রাজি না হওয়ায় স্ত্রী’কে যুবলীগ নেতার মা’রধর

গ’র্ভপাতে রাজি না হওয়ায় মা’রপিট ও হ’ত্যার হু’মকির অভিযোগে যশোরের যুবলীগ নেতা জাহিদ হোসেন মি’লন ওরফে টাক মি’লনের বি’রুদ্ধে মা’মলা করেছেন তার দ্বিতীয় স্ত্রী সোনিয়া।

সোমবার (৪ জানুয়ারি) রাতে মা’মলাটি করা হলেও মঙ্গলবার বি’ষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালি থানার ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান। এ মা’মলায় আরও তিনজনকে আ’সামি করা হয়েছে।

আ’সামিরা হলেন- শহরের পুরনো কসবা কাঁঠালতলা এলাকার মৃ’ত শেখ রুস্তম আলীর ছেলে যুবলীগ নেতা জাহিদ হোসেন মি’লন, মি’লনের প্রথম স্ত্রী সাথী বেগম, মে’য়ে অন্তরা ও পু’লিশ লাইন টালিখোলা এলাকার বাসিন্দা উজ্জ্বল হোসেন।

মা’মলার অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, ১৩ বছর আগে জাহিদ হোসেন মি’লন নড়াইল সদরের খাশিয়াল গ্রামের মোল্লা ইউনুস আলীর মে’য়ে সোনিয়াকে বিয়ে করেন। সোনিয়া জানতেন না তার স্বা’মীর পূর্বের এক স্ত্রী আছে।

বিয়ের দুই বছর পর তিনি জানতে পারেন তার স্বা’মীর শুধু স্ত্রী নয়, স’ন্তানও রয়েছে। বিয়ের পর তার স্বা’মী বিভিন্ন স্থানে বাড়ি ভাড়া করে তাকে সেখানে রেখে দিতেন। আর মাঝেমধ্যে স্বা’মী বাসায় তার কাছে যেতেন।

বর্তমানে তিনি পুরনো কসবা কাঁঠালতলায় আবদুস সালাম চাকলাদারের বাড়ির ভাড়াটিয়া। ২০২০ সালের জানুয়ারিতে ওই বাড়ি ভাড়া নিয়ে সেখানে বসবাস করছেন। এরই ২০০ গজ দূরে তার স্বা’মীর নিজস্ব চারতলা বাড়ি রয়েছে।

সেখানে স্বা’মীর প্রথম স্ত্রী ও স’ন্তান বসবাস করেন। কিন্তু তার স্বা’মী কখনো ওই বাড়িতে তাকে নিয়ে যেতেন না।

২০২০ সালের ১৯ ডিসেম্বর তিনি হঠাৎ অ’সুস্থতাবোধ করলে তার স্বা’মী তাকে যশোর সার্কিট হাউসের সামনের ল্যাবএইড হাসপাতাল অ্যান্ড মেডিকেল সার্ভিসে নিয়ে যান।

সেখানে আল্ট্রাসনোগ্রাম করার পর চিকিৎসক তাকে জানান, তিনি এক মাস দুদিনের গ’র্ভবতী। পরে বাসায় ফেরার পথে তার স্বা’মী জাহিদ হোসেন মি’লন তাকে গ’র্ভের স’ন্তান মে’রে ফেলার জন্য বিভিন্নভাবে প্রলোভন ও ভ’য়ভীতি দেখান।

কিন্তু তিনি স্বা’মীর এ প্রস্তাবে কখনো রাজি হননি। এরই একপর্যায়ে গত ৩ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৭টার দিকে মি’লনের সহযোগী উজ্জ্বল হোসেন তার বাসায় আসেন এবং তাকে স্বা’মী জাহিদ হোসেন মি’লনের নিজস্ব বাড়িতে যাওয়ার অনুরোধ করেন।

উজ্জ্বল হোসেনের স’ঙ্গে আরিফ হোসেনসহ স্বা’মী জাহিদ হোসেন মি’লনের বাড়িতে যান। সেখানে তিনি তার স্বা’মী জাহিদ হোসেন মি’লন, প্রথম স্ত্রী সাথী বেগম ও মে’য়ে অন্তরাকে দেখতে পান।

তারা এ সময় তাকে গ’র্ভের স’ন্তান মে’রে ফেলার জন্য ভ’য়ভীতি দেখালে তিনি রাজি হননি।

এ কারণে সাথী বেগম ও তার মে’য়ে অন্তরা তাকে চড় থা’প্পড় ও লা’থি মা’রেন। চুলের মুঠি ধরে তাকে টানাহেঁচড়া করেন এবং লা’ঠি দিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি মা’রধর করা হয়।

এছাড়া তারা একাধিকবার তার তলপেটে আ’ঘাত করার চেষ্টা করেন। তার স’ঙ্গী আরিফ হোসেন তাকে রক্ষা করার চেষ্টা করলে তাকেও মা’রধর করা হয়।

এরপরও গ’র্ভের স’ন্তান মে’রে ফেলতে রাজি না হলে স্বা’মী জাহিদ হোসেন মি’লন এবং আ’সামি উজ্জ্বল হোসেন তার হাত ও চুলের মুঠি ধরে টানতে টানতে ঘর থেকে বের করে সিঁড়িতে নিয়ে আসেন।

তখন তিনি চি’ৎকার চেঁচামেচি করলে তারা তাকে ছেড়ে দেন এবং গ’র্ভের স’ন্তান ন’ষ্টে তাদের কথা রাজি না হলে তাকে খু’ন জ’খমের হু’মকি দেওয়া হয়। অবশেষে তিনি এ ঘ’টনায় অভিযোগ দাখিল করেন।

যশোর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রা’প্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান জানান, সোনিয়ার অভিযোগটি মা’মলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। অ’ভিযুক্ত মি’লন যুবলীগ নেতা হলেও তার বি’রুদ্ধে থানায় একাধিক মা’মলা রয়েছে।

About tanvir

Check Also

বাংলাদেশের প্রথম তৃতীয় লি*ঙ্গের মাদরাসায় নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু

শিক্ষার্থীদের উচ্ছ্বাস ও আ’নন্দমুখর পরিবেশে বাংলাদেশের প্রথম তৃতীয় লি*ঙ্গের মাদারাসায় নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু হয়েছে। গতকাল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *