Breaking News

দু’ধ-কলা একস’ঙ্গে খেলে কি হয়, বি’পদ ডেকে আনছেন তো

বাল্যকালে এই কবিতা লিখে রবীন্দ্রনাথ কানিক বাহবা কুড়িয়েছিলেন বলে আমরা জানি। বাঙালির দু’ধে-ভাতে অনিবার্য ভাবে এসে পড়ে কলা। তাছাড়া সাহেবরাই বা কম যায় কীসে! বেনানা-মিল্কশেকের স্বাদ তো তারাই দুনিয়াকে শিখিয়েছে।দু’ধ-কলা দিয়ে কালসাপ পোষার প্রবাদটির মধ্যেও একটা আতুপুতু ভাব রয়েছে। কিন্তু এই মুহূর্তে দু’ধ আর কলার কম্বিনেশনকে নিয়ে অতি ভ’য়ের কথা শোনাচ্ছেন পুষ্টিশাস্ত্রবিদরা।

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে খ্যাতনামা ডায়েটিশিয়ান হরিশ কুমার জানিয়েছেন, দু’ধ ও কলা একত্রসেবন মা’রাত্মক বি’পজ্জনক হতে পারে। দু’ধ খাওয়ার অন্নত মিনিট ২০ পরে কলা খাওয়া উচিত।

সেই স’ঙ্গে তিনি সাবধান করেছেন বেনানা-মিল্কশেক সম্প’র্কেও। তাঁর মতে, এই বিশেষ পানীয়টি অতি দুষ্পাচ্য। সহজে হজম না হয়ে এই কম্বিনেশন পাচনযন্ত্রকে রীতিমতো ক্ষ’তিগ্রস্ত করে ফেলতে পারে।

হরিশ কুমারের এই বক্তব্যের পিছনে রয়েছে আয়ুর্বেদ শাস্ত্রের সহস্রাব্দ-প্রাচীন পরামর্শ। আয়ুর্বেদ মতে, প্রতিটি খাদ্যের আলাদা আলাদা ‘রস’ (স্বাদ) রয়েছে। এবং সেই অনুযায়ী তাদের ‘বিপাক’ (পাচনক্রিয়া) ও ‘বী’র্য’ (শীতল অথবা উষ্ণতার প্রতিক্রিয়া) ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে। এই কারণে যে কোনও কম্বিশনের খাবার খাওয়া বি’পদ ডেকে আনতে পারে।

সেই হিসেবে দু’ধ ও কলা একত্রে সেবন করতে ক’ঠোর ভাবে নি’ষেধ করে আয়ুর্বেদ। শুধু কলা নয়, দু’ধের স’ঙ্গে যে কোনও ফল খাওয়ার বি’রুদ্ধেও রায় দেয় আয়ুর্বেদ শাস্ত্র।

About tanvir

Check Also

ভিজিটিং কার্ডের মাধ্যমে দে’হ ব্য’বসা,ক’চি মে’য়ে আছে

যে দেশের মানুষ শতকরা ৯০ ভাগ মু’সলমান সেখানে নাকি ভিজিটিং কার্ডের মাধ্যমে দে’হ ব্যবসা করছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *